Web
Analytics Made Easy - StatCounter

কখন কেমন জুতা মানানসই

ঘর থেকে বের হলেই যা প্রয়োজন তা হচ্ছে জুতা। হাজার সুন্দর করে জামাকাপড় পড়লেও আপনি যদি মানানসই জুতা না পরেন তবে সবই ভেস্তে যাবে। আর পুরো বছরজুড়ে তো নানা উৎসব রয়েছেই। অন্যদিকে অফিস, বাসা, পার্টি সব স্থানে আপনার সঙ্গে যায় এমন জুতা ব্যবহার করা উচিৎ। তাই চলুন জেনে নেই কখন কেমন জুতা আপনার পায়ে মানানসই।

টি-শার্ট, জিন্স বা ট্রাউজার পরলেন অথচ পায়ে থাকল চটি, বুট কিংবা কাবলি সু, তাহলে কিন্তু সেটা আপনার জন্য মানানসই হলো না। আবার হয়তো ঈদের অনুষ্ঠান কিংবা বাঙালি ঘরানার অনুষ্ঠান, সেখানে আপনার পরনে একেবারে খাঁটি বাঙালিয়ানার পোশাক, এখানে চটি কিংবা নাগরা জুতা ছাড়া আপনার সাজসজ্জাই মাটি হয়ে যাবে। হয়তো চাকুরির ইন্টারভিউ দিতে যাচ্ছেন সে সময় যখন আপনি শার্ট-প্যান্ট পরলেন সেখানে আপনার পুরো লুকটাইকে কিন্তু একটা স্মার্ট সমাধান দিতে পারে একমাত্র আবার অফিসের বড় কর্তা হয়ে মনে করলেন, যেকোনো সাজই আমার জন্য যথেষ্ট। এমনটা ভাববেন না এখানেও আপনার পোশাকের সাথে মানিয়ে জুতা পরুন। শার্ট প্যান্ট ইন করলে অবশ্যই বুটজুতা পরবেন। পাঞ্জাবি পাজামার সাথে আবার বুট পরবেন না। এখানে মানানসই একজোড়া চটি জুতা পরুন।

অন্যদিকে হাওয়াই চপ্পলও কিন্তু বেশ আরামদায়ক। কিন্তু এ হাওয়াই চপ্পল কিছু সীমিত জায়গায় ব্যবহার উপযোগী। তাই হাওয়াই চপ্পল ব্যবহারে সীমাবদ্ধতা রক্ষা করবেন। না বুঝেই যেকোনো কালারের জুতা কিনবেন না। ভেবে নিন কোন কোন রঙের জামার সাথে এটা ব্যবহার করতে পারবেন। তাই রঙ বুঝে জুতা কিনুন, যাতে একের বেশি পোশাকের সাথে তা বেমানান না হয়ে যায়।

ছেলেদের ক্ষেত্রে লাল, নীল, হলুদ, সবুজ রঙের জুতা কিনা থেকে বিরত থাকার চেষ্টা করুন। কালো, সাদা, ক্রিম, ব্রাউন, মেরুন রং সব রকম পোশাকের সাথেই মানায়।

Share this post

Leave a Reply